সবুজ দ্বীপের রাজা

সবুজ দ্বীপের রাজা ১৯৮৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছোটোদের জন্য তৈরি বাংলা ছবি এবং ছবিটি সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের সৃষ্ট চরিত্র অবলম্বনে কাকাবাবু সিরিজের প্রথম ছায়াছবি। চিল্‌ড্রেন ফিল্ম সোসাইটি’র প্রযোজনায় তপন সিন্‌হা’র পরিচালনায় এই ছবিতে কাকাবাবু চরিত্রে অভিনয় করেন শমিত ভঞ্জ এবং ছবিটি ভারতের বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদ হয়ে মুক্তি পায়।

sabuj.jpg

সারমর্ম

কাকাবাবু এক বিশেষ কাজে আন্দামান যাবেন আর সঙ্গে নিয়ে যাবেন সন্ত’কে। সন্ত বা অন্য কেউ সঠিক জানেন না ঠিক কি কারণে কাকাবাবু আন্দামানে যাচ্ছেন। জাহাজে করে যাবার সময় সন্ত বুঝতে পারে যে তারা ছাড়াও আরও বেশ কিছু লোক আন্দামান যাচ্ছেন বিশেষ কোনো কারণে। এবং তাদের মধ্যে একজনকে সন্ত আগে থেকে দেখেছে এক বিশেষ ঘটনায়। রহস্যের জাল ঘনীভুত হয় আন্দামান যাবার পথেই, আন্দামানে পৌছে শুরু হয় আরো নানান ঘটনা।

কলা-কুশলী

  • কাকাবাবু — শমিত ভঞ্জ
  • সন্ত — অরুণাভ অধিকারী
  • সন্ত’র মা — লিলি চক্রবর্তী
  • গুপিদা — রবি ঘোষ

নির্মলকুমার, তরুণকুমার, রমেন রায় চৌধুরি, বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়, কল্যাণ চট্টোপাধ্যায়।

মুক্তি ও সাফল্য

ছবিটি প্রযোজনা করেন চিল্‌ড্রেন ফিল্ম সোসাইটি, এটি তাদের তৃতীয় ছায়াছবি “ডাকাতের হাতেই” এবং “হীরের প্রজাপতি”র পর এবং প্রথম রঙ্গিন ছবি। সেই সময় তপন সিন্‌হা সোসাইটির একজন মুখপাত্র ছিলেন এবং “সফেদ হাতি” নামের এক বিখ্যাত ছবি করেন। সত্তরের দশকে ছোটোদের ছবির টানা সাফল্য একটি বড় বাজেটের ছবি করতে ইন্ধন জোগায় সোসাইটি’কে। শমিত ভঞ্জ সিন্‌হা’রই ছবি “আপনজন” দিয়ে অভিনয় শুরু করেন, ছবিতে আরও অনেক সিন্‌হা’র ছবির নিয়মিত অভিনেতারা অভিনয় করেছেন।

১৯৮৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবিটি সেই বছরের অন্যতম সফল ছবি। উল্লেখযোগ্যভাবে, সেই একই বছরে আরও দুটি বড় বাজেটের ছোটোদের ছবি মুক্তি পায় এবং দুর্দান্ত সাফল্য পায় — চারমূর্তি ও জয় বাবা ফেলুনাথ।

ছবিটি’র দারুণ সাফল্য এবং তথ্যবহূলতার জন্য চিল্‌ড্রেন ফিল্ম সোসাইটি ছবিটি ইংরাজি, হিন্দি এবং আরও অন্যান্য আঞ্চলিক ভাষায়।

sabuj%20dweeper%20raja.jpg

ছবিটির সাফল্যে উদ্ভুদ্ব হয়ে তপন সিন্‌হা কাকাবাবুকে নিয়ে আরো ছবি বানাতে আগ্রহী হন, কিন্ত সোসাইটি সেই সময় আর বড় বাজেটের ছবি করাতে আগ্রহ দেখান না। ১৯৯৬ সালে এন্‌.এফ্‌.ডি.সি এবং পরিচালনা করেন পিনাকী চৌধুরি যেটিও ভীষণভাবে সফল হয়। মজার কথা, এর পরে ২০০১ সালে চিল্‌ড্রেন ফিল্ম সোসাইটি আবার কাকাবাবুতে ফিরে আসেন এবং কাকাবাবুর তৃতীয় ছবি এক টুকরো চাঁদ প্রযোজনা করেন চৌধুরির পরিচালনায়।

Unless otherwise stated, the content of this page is licensed under Creative Commons Attribution-ShareAlike 3.0 License